টানা অষ্টমবারের মতো শাজাহান খানের প্রতি আস্থা রেখেছেন এলাকাবাসী

নিজস্ব প্রতিবেদক:
মাদারীপুর-২ আসনে (সদরের একাংশ ও রাজৈর উপজেলা) টানা অষ্টমবারের জাতীয় নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান খান। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ২ লাখ ২০ হাজারের বেশি ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়ে রেকর্ড গড়েছেন। ২ লাখ ২৩ হাজার ৫১৮ ভোট পেয়ে তিনি নির্বাচিত হন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির (লাঙ্গল) এ কে এম নুরুজ্জামান পেয়েছেন ৩ হাজার ৪১৫ ভোট।

সাবেক নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি। তিনি প্রথমবার ১৯৮৬ সালে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মাদারীপুর-২ আসন থেকে জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এর পর কোন নির্বাচনেই তিনি পরাজিত হননি। একই আসন থেকে পরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়নে ১৯৯১, ১৯৯৬, ২০০১, ২০০৮, ২০১৪ ও ২০১৮ সালের নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।
২ বার নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী থাকাকালিন সফলতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছেন। বিগত সংসদে তিনি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ছিলেন। বর্তমান সংসদে তিনি খাদ্য মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির দায়িত্ব পালন করছেন।

শাজাহান খান ১৯৬৪ সালে হামিদুর রহমান শিক্ষা কমিশনের বিরুদ্ধে আন্দোলনে যোগদান করার মাধ্যমে ছাত্র রাজনীতি শুরু করেন। ছাত্র রাজনীতিতে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে অনুপ্রাণিত হন। তিনি ১৯৬৬-৬৭ এবং ১৯৬৭-৬৮ সালে মাদারীপুর মহকুমা ছাত্রলীগের নির্বাচিত সেক্রেটারি ও পরবর্তীতে সভাপতি ছিলেন। এছাড়া তিনি মাদারীপুর নাজিমউদ্দিন কলেজের সহ-সাধারণ সম্পাদক (এ,জি, এস) ও সহ-সভাপতি (ভি, পি) নির্বাচিত হন। তিনি ১৯৭১ সালে যুদ্ধের সময় প্রথমে মুক্তিবাহিনী এবং পরে মুজিব বাহিনীর মাদারীপুর মহকুমার -এর ডেপুটি কমান্ডার ছিলেন। তিনি ভারতের দেরাদূনে মুক্তিযুদ্ধ ট্রেনিং -এ অংশগ্রহণ করেন এবং বাংলাদেশে ফিরে আসে সক্রিয় মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন।

Print Friendly, PDF & Email